যারা করোনা মহামারী সম্পর্কিত সকল নিউজ, সকল সতর্কতা, রাষ্ট্রীয় বিধিনিষেধ জানার পরেও বলছেন……

COVID-19 মহামারী Vs দেশীয় ছাগল ———————————————————— ”[•] সৃষ্টিকর্তা যেদিন মৃত্যু ঘটাবে সেদিনই মৃত্যু ঘটবে [•] অতএব, অযথাই এত সতর্কতা আর বিধি নিষেধ মেনে কি লাভ?” তাদেরকে বলছি…….. আপনার প্রথম কথা নিয়ে কারো কোন সন্দেহ নাই, হ্যাঁ সৃষ্টিকর্তা যেদিন মৃত্যু ঘটাবে সেদিনই মৃত্যু ঘটবে। কিন্তু আপনার ২য় কথাটি অত্যন্ত আত্মঘাতি। দেশে সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসী মানুষ আপনি ছাড়াও আরো অনেক আছে। কিন্তু আপনি তো জেনে বুঝে আপনার সৃষ্টিকর্তা ও তাঁর সৃষ্টি মানুষের সাথে ভন্ডামী ও পাপ করে চলেছেন। আপনার আমার মত ২/১ জন বান্দা দুনিয়া থেকে বিদায় নিলে জগতের কোন কিছু যায় আসে…

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের বর্তমান ও ভবিষ্যত

মোহাম্মদ আবু হুরাইরা| বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে আমাদের একজন শিক্ষক ছিলেন, যিনি ‘Applied Physics’ পরাতেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী একজন দেশপ্রেমিক বীর মুক্তিযোদ্ধা৷ তিনি মাঝে মাঝে ক্লাসে বলতেন, প্রত্যেক মানুষেরই ‘Physics’ জানা অত্যাবশ্যকিয়। কারন দৈনন্দিন জীবনযাপনের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই ‘Physics’ এর সরাসরি সংযোগ ও প্রয়োগ রয়েছে। তার ভাষ্যমতে, যেহেতু রাজনীতিবিদদের দ্বারা দেশ তথা সমাজ পরিচালিত হয়, তাই তাদের অবশ্যই ‘Physics’ জানা অতিব জরুরী কারন Physics না জানলে দেশ পরিচালনা করা সম্ভব নয়। তাই তিনি মনে করতেন রাজনীতিবিদদের এমপি নমিনেশন নেয়ার পূর্বশর্ত হিসাবে ‘Physics Subject’ এর উপর দক্ষতার ‘Test’ এ পাশ করা…

করোনার ডিজিটাল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কি জানেন ? এটা সেলফি ব্যারাম সারায়।

করনার ডিজিটাল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কি জানেন ? এটা সেলফি ব্যারাম সারায়। খেয়াল করলেই বুঝবেন। হার্ডকোর সেলফি রোগীরাও মুক্ত। এটা শুভ সংবাদ। আর খারাপ সংবাদ, এক, এটা জনসংখ্যা কমার সাথে সাথে নাকি গোপনে বাড়ায়ও। দুই, বাকি লেখাটুকুও পড়তে হবে। কারো কোন কাজ নেই বলে একটু আগেই ‘বলদ’ রচনা লেখার আহ্বান শুনলাম টিভিতে। নাগরিক হিসেবে আমি তাই আমার দায়িত্ব পালন করছি। ছেলেবেলায় গরুর রচনা পড়েনি এমন মানুষ পাবেন কিনা জানি না, তবে ‘বলদ’ রচনা হয়তো এটাই প্রথম। দেখে শিখে বুদ্ধিমান, ঠেকে শিখে বেকুব আর ঠকে শিখে বলদ। বলদ চেনেন তো ? এরাও…

করোনা,বর্তমান বিশ্ব আর বাংলাদেশ !!!

আমি বেলজিয়াম প্রবাসি একজন সাধারন কর্মজীবি মানুষ।ছেলে,মেয়ে পরিবার নিয়ে ভালোইছিলাম,আলহামদুলিল্লা এখনও ভালই আছি।যদি ও গত ১৩ই মার্চ থেকে আমরা পুরুবেলজিয়ামবাসী কোয়ারেন্টাইনে আছি। আপনারা সবাই অবগত আছেন যে ,করোনা ভাইরাসের প্রভাবে আমরা ইউরোপে যারা আছি সবাই স্ট্রাগল করে যাচ্ছি ।বিশেষকরে ইতালির অবস্হা খুবই গুরুতর।ইতালির এই গুরুতর অবস্হা টের পেয়ে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে গত ১৩ই মার্চসরকার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়ে পুরু বেলজিয়াম Lock down ঘোষনা করে।তারপর করোনা ভাইরাসের প্রসারের প্রভাব না কমায়গতকাল আবার hard lock down বেলজিয়াম ঘোষনা করে।শুধুমাত্র ঔষধের দোকান,সুপারমার্কেট,পোস্ট অফিস,হাসপাতাল সহঅল্প কিছু জনসেবা মুলক প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে বাকি সকল প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়।আলহামদুলিল্লাহ সরকারের এইসিদ্ধান্তে আমরা সাধারন জনগন সবাই খুশি। আমাদের সাগরের ওপারে পার্শবর্তী দেশ ইংল্যান্ড।ইংল্যান্ডে আমার অনেক কাছের আত্বিয় স্বজন বন্ধু বান্ধব বড়ভাই৯৫/৯৭ব্যাচের বন্ধু বান্ধব সহ আরও কলাকৌশলীরা বসবাস করেন।করোনা ভাইরাসের প্রভাবে আমার আগে থেকে ছুটি নেওয়া৮দিনের সপরিবারের লন্ডন টোর ৭মার্চ বাতিল করি।তারপর থেকে আমাদের ইংল্যান্ড বাসীদের চিন্তায় আমি সঠিক ভাবে খেতেঘুমাতে পারছিলাম না।আমার সহধর্মীনির মামাত বোন(আমার প্রাইমারী স্কুলের সহপাঠি) দুই মেয়ে ও হাজবেন্ড নিয়ে লন্ডনেথাকেন।উনাদের বাসায়ই আমাদের যাওয়ার কথা ছিল। গতরাতে জানতে পারলাম বৃটিশ সরকার করোনার জন্য দেরী করে হলেও lock down করার চিন্তা করতেছে আগামীকাল রাত১২টা থেকে অথচ আমরা বেলজিয়ামবাসী গত শুক্রবার রাত ১২টা থেকেই lock down এ ছিলাম।আর গতকাল থেকে আছিhard lock down এ।তারপরও আমি অনেক খুশি যে বৃটিশ সরকার এমন একটা সিদ্ধান্ত নিতে বাদ্ধ হয়েছে বা নিয়েছে।ভেবেছিলাম গতরাতে ভাল ঘুম হবে কিন্তু হলোনা।ভোর ৫টায় ঘুম ভাংলো মোবাইল হাতে নিয়ে খবর পরলাম ও দেখলাম প্রানেরদেশ বাংলাদেশে ও আমাদের ইউরোপের দেশ গুলোর মতো সমস্যা ঘনিয়ে আসছে হয়তো।বুকের পাঁজরের মাঝে কেমন জানিএকটা আঘাত ফিল করলাম, প্রানের দেশ বাংলাদেশের জন্য। আমার ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামের এই ঘটনা  অল্প কথায় সবাইকে জানানোর উদ্দেশ্য হলো: যেকোন সময় বাংলাদেশ সরকারওlock down ঘোষনা করতে পারে।প্রায় সমগ্র পৃথিবীর অবস্হা আজ করোনা ভাইরাসের প্রভাবে প্রভাবিত হতে যাচ্ছে।বাংলাদেশও এই প্রভাবের বাইরে নয়।সবার এখনই সব রকমের প্রস্তুতি নিয়ে ফেলা জরুরী হয়ে পরেছে। এদিকে গত কয়েকদিনের আমাদের বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় কয়েকজন উচ্চ পদস্ত মন্ত্রীদের বক্তব্য শুনে আমি ভীষণভাবেমর্মাহত ও বাকরুদ্ধ। মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর ভাষায় : করোনা মারাত্মক রোগ নয়;এটা সর্দি-জ্বরের মতো।(সুত্র যমুনা টিভি)।🤔 আমরা প্রবাসিরা নবাবজাদা।😎 পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী : করোনা প্রতিরোধে ঢাকা বিমানবন্দরের মত ব্যবস্হা উন্নত দেশ গুলোতেও নেই।😇 স্বাস্হ্য মন্ত্রী: করোনা নিয়ন্ত্রনে আমেরিকা-ইতালির চেয়েও বেশি সফল বাংলাদেশ।😷 তথ্যমন্ত্রী: আমরা করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রনে রাখতে সক্ষম হয়েছি।😝 অন্য আরেকজন  মন্ত্রী বলেছেন স্বয়ং আল্লাহ আসলেও নাকি পারবেনা।😫 নির্বাচন কমিশনার হুদা সাহেব,করোনা ভাইরাসের বিস্তারের মধ্যেও,উনি চট্রগ্রাম সিটিকর্পোরেশনসহ আরও কয়েকটি শুন্যঘোষিত সংসদ সদস্য নির্বাচন বন্ধ করবেন না।নির্বাচন হতেই হবে,ইভিএম মেসিনে:-🙄 লিখতে গেলে লিখা শেষ করতে পারবোনা।অবশেষে ৭টন আতসবাজির ঠেলা আমরা কি সামলাতে পারবো ? আল্লাহ স্বয়ং আমাদের বাংলাদেশের মানুষদের রক্ষা করতে হবে,না হয় কি যে হবে কল্পনার বাইরে।আপনারা আত্বিয় স্বজন যারাবাংলাদেশে আছেন তাদের সবাইকে সতর্ক করার জন্য আমার এই লেখা।দেশে আপনারা যারা আছেন এখনও বুঝতেই পারছেননা,করোনার প্রভাব কতটুকু পরতে পারে আমাদের দেশে।আপনাদের সবাইকে বলছি বাজার সদাই করে ফেলুন প্রয়োজন মতো।কারন বিপদের আগে সাবধানতা অবলম্বন করা আমাদের নবীজী (স) এর সুন্নত। যেকোন দিন সমস্ত বাংলাদেশ ব্লক ডাইন করে দিতে হতে পারে।তখন মানুষ খাবার খুঁজে পাবেনা।কি ভয়াবহ ভাবতেই গা শিউরেউঠছে।পরিস্তিতি সেদিকেই যাচ্ছে আস্হে আস্হে। মিডিয়া গুলোর প্রতি অনুরোধ এমন কিছু প্রচার থেকে বিরত থাকুন,যেগুলো প্রচার করলে মানুষের মধ্যে বেশি আতংক ছড়িয়ে পরে।যার ফলে আপনাদের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ও আস্হা উঠে যায়। আশা রাখি আপনারা যে যার মতো সবাই আগাম প্রস্তুতি নিবেন।আমার লেখাটা ঠান্ডা মাথায় পড়ে সিদ্ধান্ত নিবেন। প্রবাসি ফেরত ভাইবোনেরা দায়িত্বশীল হয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে থাকুন।নিজে বাঁচুন পরিবারকেবাঁচান দেশকে বাঁচান ।সরকারের প্রশাসনকে সহযোগিতা করুন। আপনাদের মত গুটি কয়েক প্রবাসিদের জন্য ,আমরা বাকি কয়েক মিলিয়ন প্রবাসিরা সমালোচনার পাত্র হচ্চি।আপনাদের কাছথেকে এটা কোন ভাবেই কাম্য নয়। হাইকোর্টের আদেশ ও আমাদের মহামান্য রাস্ট্রপতির আদেশ যথাযথ ভাবে পালন করা আপনাদের গুরু দায়িত্ব বটে।করোনাভাইরাসের প্রভাব বিস্তার রোধ করার জন্য কোয়ারেন্টাইনের কোন বিকল্প নাই। আমরা যদি ১৩ই মার্চ থেকে ৫এপ্রিল পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পারি তাহলে আপনারা ইতালির মতো ভয়াবহ পরিস্তিতিথেকে দেশে যেয়ে কেন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পারবেন না।কেন দেশের কোটি কোটি মানুষকে ভয়াবহ পরিস্তিতির দিকে ঠেলেদিচ্ছেন তা আমাদের কারোরই বোধ্যগম্য নয়।দয়া করে আইন মেনে চলুন। কবে যে ঘুমাতে পারবো আল্লাহ ই ভাল জানেন। মাসুম শিকদার,বেলজিয়াম ।

করোনার ভয়াবহতা পরিমাপ করতে কয়েকটা জায়গায় বোধহয় বড়ো ভুল হয়ে গেছে।

করোনার পরিমাপ। করোনার ভয়াবহতা পরিমাপ করতে কয়েকটা জায়গায় বোধহয় বড়ো ভুল হয়ে গেছে। করোনাকে আমরা মারাত্মক মরণঘাতী এখনো ভাবছি না। কারণ হচ্ছে চীনে ছড়িয়ে পড়া করোনায় মৃত্যু হার ছিল মাত্র ৩%। মানে ১০০ জন আক্রান্ত হলে মারা গেছেন ৩ জন। এই তথ্যটা বিরাট একটা ফাঁদ। এখানেই সম্ভবত অনেক বড়ো ভুল হয়ে গেছে। ভুলটা কেউ ধরতে পারছেন কিনা বুঝতে পারছি না। চীনে মৃত্যুহার ৩% ছিল এটা সত্য। ভুলটা হচ্ছে চাইনিজদের সাথে জগতের অন্য কোনো জাতির তুলনা হয় না। বলা হয়ে থাকে দুনিয়াতে চাইনিজরাই হলো একমাত্র জাতি যারা বৃদ্ধ হয় না। একজন…

! the power of nature!সারা দুনিয়া আজ থমকে গেছে সাধারন এক ভাইরাসের কাছে।

টাইমস স্কয়ার শূন্য। লন্ডন ব্রীজে হাঁটছে না মানুষ, কাবার চার পাশে ঘুরছে না মুসলমান, ভেনিসের জলে ভাসছে না নব দম্পতি আর পর্যটক। শূন্য গগনে উড়ছে না প্লেন আর সীমান্ত পেরিয়ে ঢুকছে না আন্তদেশীয় ট্রাক। দাপটটা দেখছেন! the power of nature! কোন সার্কুলার, নোটিস, ইমেইল, ফোন কল, নাথিং। ইচছা হলো, রাজত্ব দখল করে নিলো। চোখে আঙ্গুল তুলে বুঝিয়ে গেলো, আমার জন্যে তুমি; তোমার জন্যে আমি নই। যেটা পাও, অনুগ্রহ আর অনুদান আমার। প্রাপ্য ভেবো না। নাহ, বহুত কষ্ট পাইছে প্রকৃতি এইবার। আগেতো গোস্বা হইলে তাও বুঝবার পারতাম খোমা দেইখ্যা। আচমকা ঝাড়া…

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ইংল্যান্ড প্রবাসি আফজাল আহমেদের অন্য রকম জীবনগল্প।

জীবনের নকশীকাথা মৃত্যু ভয় সবচেয়ে বড় ভয়, সবাই আতঙ্কিত। সবাই ভীত সন্ত্রস্ত – সবাই ভাবছে কি হবে আমাদের – আমি একজন ব্যবসায়ী, যদিও নিজেকে আমি এনটাপ্রনর হিসাবে বেশি মনে করি – কারণ ক্রমাগত ব্যবসাতে নতুন কোনো আইডিয়া, নতুন কিছু পরিবর্তন নিয়ে আসছি। এই মহামারিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির পরিমাণ আমাদের মতো মানুষের। আমাদের ব্যবসাকে আমরা ছুট থেকে বড় হতে দেখেছি, নিজ হাতে গড়ে তুলেছি – কতো নির্ঘুম রাত, কত প্ল্যান, কত কষ্ট করে জোগাড় করা সবকিছু, কত স্বপ্ন নিয়ে গড়ে তুলা আমাদের এই শিশুটা। প্রকৃতির এই মহামারীতে আমাদের কষ্টে গড়া এই…

আজ নতুন করে লেখা প্রয়োজন, এ সমাজ ভাংবো আমরা কেমন করে………….????

একখন্ড জমি নিয়ে আমার প্রতিবাসী দুই সহোদরের মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলছিলো, প্রায় রাতেই হতো তাদের ভয়ংকর মারামারি, রাতের খাবার ছেরে দৌড়ে গিয়ে থামাতে হতো সে বীভৎস মারামারি, তাদের সেই মারামারির নৃশংসতা দেখে একদিন উপরের দিকে তাকিয়ে, তার কাছে ক্ষমতা চাইলাম এই ভয়াবহ বিরোধ নিষ্পত্তির, পেয়েগেলাম উপায়, সমাধান সূত্র, আমার প্রদেয় সমাধানসূত্রে শর্ত সাপেক্ষে দুজনেই রাজি বিরোধ চিরনিষ্পত্তির, সমস্যা দাড়ালো তখন আদালতের মামলার, যা তারা একে অপরের বিরুদ্ধে করেছিলো, দুজনকেই রাজি করালাম তারা উভয়ে নিজ দায়িত্বে নিজ নিজ মামলা তুলে নিবে, এবার বাধসাধলো তাদের নিজ নিজ উকিল সাহেবেরা, কোনো পক্ষের উকিলই…

২১ ফেব্রুয়ারির পাশাপাশি ৮ ফাল্গুন লেখার নির্দেশনা চেয়ে রিট

প্রেরনা ডেস্কঃ বাংলাদেশে সরকারি ও বেসরকারি নথিপত্র, আমন্ত্রণপত্রসহ সব ক্ষেত্রে ২১ ফেব্রুয়ারি লেখার পাশাপাশি ৮ ফাল্গুন ও বাংলা সন লেখার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নস্কর আলীর পক্ষে অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান লিংকন গতকাল বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন দাখিল করেছেন। রিট আবেদনে মন্ত্রিপরিষদসচিবকে বিবাদী করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিট আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে বলে জানিয়েছেন ওই রিট আবেদনকারী।

বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা

প্রেরনা ডেস্কঃ চলতি মাসের শেষ দুই দিন দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আজ সোমবার আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান জানান, ২৯ ও ৩০ জানুয়ারি দেশের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে পারে। তিনি জানান, ফরিদপুর, মাদারিপুর, গোপালগঞ্জ, সীতাকুন্ড, কুমিল্লা, শ্রীমঙ্গল, রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও কুমারখালী অঞ্চলসহ রংপুর বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কিছু কিছু এলাকায় প্রশমিত হতে পারে। এরপর চলতি মাসে দেশে আর শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই, আজকের পর কিছু কিছু এলাকায় তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেলেও বৃষ্টির পর…