সাংবাদিক মাহমুদুল হাকিম অপু মৃত্যুতে প্রেরনার সম্পাদকের শোক

প্রেরনা ডেস্কঃ দৈনিক সময়ের আলো পত্রিকার সিনিয়র সাব এডিটর মাহমুদুল হাকিম অপু মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৫২ বছর। মাহমুদুল হাকিম অপু ঢাকা বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের গণ‌যোগা‌যোগ ও সাংবা‌দিকতা বিভা‌গের প্রাক্তন ছাত্র। মঙ্গলবার ভোরে বনশ্রীতে নিজ বাসায় ঘুমের মধ্যেই তিনি মারা যান। তার মৃত্যুর কারণ এখনও জানা যায়নি। তবে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ছিলেন কিনা তা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার ফল জানানোর পরই জানা যাবে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কিনা। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে বাসায় অবস্থান করছিলেন বলে জানিয়েছেন তার সহকর্মীরা। মাহমুদুল…

ইরফানের মাঝে হুমায়ুনের ছায়া খুঁজে ফিরেছিল দর্শক

প্রেরনা ডেস্কঃ ইরফানের মাঝে হুমায়ূন আহমেদের ছায়া খুঁজেছিল এদেশের পাঠক ও দর্শকেরা। বাংলাদেশি চলচ্চিত্র ডুব- এ অভিনয় করেন ইরফান খান। এই ছবির গল্পটি তৈরি হয় পরিবারের প্রধান সদস্যের মৃত্যুর পরে দুইটি পরিবারের অটুট বন্ধনের কাহিনি নিয়ে। যেখানে একজন মধ্যবয়স্ক লেখক এক তরুণীর প্রেমে পড়েন যিনি তার মেয়ের বন্ধু। চলচ্চিত্রটির প্রধান ভাষ্য হচ্ছে যে,মৃত্যু সবসময় সব কিছু নিয়ে যায় না,অনেক সময় কিছু দিয়েও যায়। ছবির গল্প নিয়ে তুমুল হইচই শুরু হয়। অভিযোগ ওঠে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারকে নিয়ে সিনেমার গল্প। তবে এ অভিযোগকে আমল দেনননি নির্মাতা ফারুকী। কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা অবশ্য স্পষ্টই…

মানবতা আজ বিপর্যয়ের মূখে…

লেখক: রাবিউল ইসলাম মৃদুল :মনে আছে.. মুক্তিযুদ্ধের সময় কত নারী খানসেনাদের হাত থেকে অচেনা একজন সমবয়সী মুক্তিযোদ্ধাকে বাঁচানোর জন্য, নিমেশেই স্বামী বানিয়ে শুয়ে থাকতো। মনে আছে… একজন মা কিভাবে নিজে না খেয়ে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে খাওয়াতো।। সময় এসেছে বন্ধুগন, আজ সমাজের যে, যে অবস্থানেই থাকি না কেনো, সেখান থেকেই আজকের করোনা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে, অবদান রাখার। কি করবেন????? কেউ বলে দিবে না বন্ধু, সুদ্ধ বিবেক দিয়ে চিন্তা করুন… সকল সাবধানতা অবলম্বন সাপেক্ষে… আপনার কি করার আছে…… আমি আমাকে দিয়ে একটি ছোট্ট উদাহরন রাখতে চাই… আমার বাসায় এই লকডাউন অবস্থায়ও গোটা দশজন ব্যচেলর…

করোনার ডিজিটাল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কি জানেন ? এটা সেলফি ব্যারাম সারায়।

করনার ডিজিটাল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কি জানেন ? এটা সেলফি ব্যারাম সারায়। খেয়াল করলেই বুঝবেন। হার্ডকোর সেলফি রোগীরাও মুক্ত। এটা শুভ সংবাদ। আর খারাপ সংবাদ, এক, এটা জনসংখ্যা কমার সাথে সাথে নাকি গোপনে বাড়ায়ও। দুই, বাকি লেখাটুকুও পড়তে হবে। কারো কোন কাজ নেই বলে একটু আগেই ‘বলদ’ রচনা লেখার আহ্বান শুনলাম টিভিতে। নাগরিক হিসেবে আমি তাই আমার দায়িত্ব পালন করছি। ছেলেবেলায় গরুর রচনা পড়েনি এমন মানুষ পাবেন কিনা জানি না, তবে ‘বলদ’ রচনা হয়তো এটাই প্রথম। দেখে শিখে বুদ্ধিমান, ঠেকে শিখে বেকুব আর ঠকে শিখে বলদ। বলদ চেনেন তো ? এরাও…

ইংল্যান্ড প্রবাসি একজন আশাবাদী মানুষ : সাইফুল কবির।

আমি সবসময়ে আশাবাদীর দলে !! অবস্থা যখন খারাপ হতে লাগলো , বাবা ,ভাই আর মা ফোন দিয়ে বললো অবস্থা খারাপ কি হয়েছে ? আমরা আছি না !! পাউন্ড লাগলে বলবি , কোনদিন নেসনি এখন নিতেই পারিস !! আর আমি ? তাদের জন্য টেনশন করছি ? তারা যে বাংলাদেশে !! আমি বার্মিংহামে ৫ টি পরিবারের জন্য নিয়মিত বাজার করছি (এই মুহূর্তে তারা আইসোলেটেড ) !! অন্যান্য শহরে আমাদের অন্যান্য বন্ধুরা করছে !! বউ একটু ভয় পায় , কিন্তু বুঝিয়ে বলেছি !! কাল এখানে মাদার ডে ছিল !! অনেকের ছেলে /মেয়ে তাদের…

নিন্ম মধ্যবিত্ত মাদ্রাসা শিক্ষকের জীবন গল্প ।

চাল কিনতে গিয়েছিলাম। দোকানে ভীড়। একটু দুরে স্বল্প পরিচিত এক মাওলানা সাহেবকে বিমর্ষ চেহারায় দাড়িয়ে থাকতে দেখে এগিয়ে গেলাম ওদিকে। ম্লান হাসি হেসে সালাম কালামের পর কথা বলতে লাগলাম। একটু দুরে কমদামি একটা রেস্টুরেন্টে বসে চা খেতে খেতে কথা বলছিলাম। মাওলানার মোবাইলে ফোন আসছিলো ঘনঘন। কিন্তু তিনি বারবার কেটে দিচ্ছিলেন। আমি বললাম, ফোন রিসিভ করে কথা বলেন। কোনো উত্তর না দিয়ে এবার ফোনটি এগিয়ে দিলেন আমার দিকে। বললেন, আপনিই কথা বলেন। আমি রিসিভ করলাম৷ ওপাশ থেকে নারীকন্ঠ, ফোন ধরছনা কেনো? চালের কি ব্যাবস্থা হয়েছে? বাচ্চারা কান্নাকাটি করছে। এক মূহুর্তেই বুঝে…

করোনা,বর্তমান বিশ্ব আর বাংলাদেশ !!!

আমি বেলজিয়াম প্রবাসি একজন সাধারন কর্মজীবি মানুষ।ছেলে,মেয়ে পরিবার নিয়ে ভালোইছিলাম,আলহামদুলিল্লা এখনও ভালই আছি।যদি ও গত ১৩ই মার্চ থেকে আমরা পুরুবেলজিয়ামবাসী কোয়ারেন্টাইনে আছি। আপনারা সবাই অবগত আছেন যে ,করোনা ভাইরাসের প্রভাবে আমরা ইউরোপে যারা আছি সবাই স্ট্রাগল করে যাচ্ছি ।বিশেষকরে ইতালির অবস্হা খুবই গুরুতর।ইতালির এই গুরুতর অবস্হা টের পেয়ে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে গত ১৩ই মার্চসরকার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়ে পুরু বেলজিয়াম Lock down ঘোষনা করে।তারপর করোনা ভাইরাসের প্রসারের প্রভাব না কমায়গতকাল আবার hard lock down বেলজিয়াম ঘোষনা করে।শুধুমাত্র ঔষধের দোকান,সুপারমার্কেট,পোস্ট অফিস,হাসপাতাল সহঅল্প কিছু জনসেবা মুলক প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে বাকি সকল প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়।আলহামদুলিল্লাহ সরকারের এইসিদ্ধান্তে আমরা সাধারন জনগন সবাই খুশি। আমাদের সাগরের ওপারে পার্শবর্তী দেশ ইংল্যান্ড।ইংল্যান্ডে আমার অনেক কাছের আত্বিয় স্বজন বন্ধু বান্ধব বড়ভাই৯৫/৯৭ব্যাচের বন্ধু বান্ধব সহ আরও কলাকৌশলীরা বসবাস করেন।করোনা ভাইরাসের প্রভাবে আমার আগে থেকে ছুটি নেওয়া৮দিনের সপরিবারের লন্ডন টোর ৭মার্চ বাতিল করি।তারপর থেকে আমাদের ইংল্যান্ড বাসীদের চিন্তায় আমি সঠিক ভাবে খেতেঘুমাতে পারছিলাম না।আমার সহধর্মীনির মামাত বোন(আমার প্রাইমারী স্কুলের সহপাঠি) দুই মেয়ে ও হাজবেন্ড নিয়ে লন্ডনেথাকেন।উনাদের বাসায়ই আমাদের যাওয়ার কথা ছিল। গতরাতে জানতে পারলাম বৃটিশ সরকার করোনার জন্য দেরী করে হলেও lock down করার চিন্তা করতেছে আগামীকাল রাত১২টা থেকে অথচ আমরা বেলজিয়ামবাসী গত শুক্রবার রাত ১২টা থেকেই lock down এ ছিলাম।আর গতকাল থেকে আছিhard lock down এ।তারপরও আমি অনেক খুশি যে বৃটিশ সরকার এমন একটা সিদ্ধান্ত নিতে বাদ্ধ হয়েছে বা নিয়েছে।ভেবেছিলাম গতরাতে ভাল ঘুম হবে কিন্তু হলোনা।ভোর ৫টায় ঘুম ভাংলো মোবাইল হাতে নিয়ে খবর পরলাম ও দেখলাম প্রানেরদেশ বাংলাদেশে ও আমাদের ইউরোপের দেশ গুলোর মতো সমস্যা ঘনিয়ে আসছে হয়তো।বুকের পাঁজরের মাঝে কেমন জানিএকটা আঘাত ফিল করলাম, প্রানের দেশ বাংলাদেশের জন্য। আমার ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামের এই ঘটনা  অল্প কথায় সবাইকে জানানোর উদ্দেশ্য হলো: যেকোন সময় বাংলাদেশ সরকারওlock down ঘোষনা করতে পারে।প্রায় সমগ্র পৃথিবীর অবস্হা আজ করোনা ভাইরাসের প্রভাবে প্রভাবিত হতে যাচ্ছে।বাংলাদেশও এই প্রভাবের বাইরে নয়।সবার এখনই সব রকমের প্রস্তুতি নিয়ে ফেলা জরুরী হয়ে পরেছে। এদিকে গত কয়েকদিনের আমাদের বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় কয়েকজন উচ্চ পদস্ত মন্ত্রীদের বক্তব্য শুনে আমি ভীষণভাবেমর্মাহত ও বাকরুদ্ধ। মাননীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রীর ভাষায় : করোনা মারাত্মক রোগ নয়;এটা সর্দি-জ্বরের মতো।(সুত্র যমুনা টিভি)।🤔 আমরা প্রবাসিরা নবাবজাদা।😎 পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী : করোনা প্রতিরোধে ঢাকা বিমানবন্দরের মত ব্যবস্হা উন্নত দেশ গুলোতেও নেই।😇 স্বাস্হ্য মন্ত্রী: করোনা নিয়ন্ত্রনে আমেরিকা-ইতালির চেয়েও বেশি সফল বাংলাদেশ।😷 তথ্যমন্ত্রী: আমরা করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রনে রাখতে সক্ষম হয়েছি।😝 অন্য আরেকজন  মন্ত্রী বলেছেন স্বয়ং আল্লাহ আসলেও নাকি পারবেনা।😫 নির্বাচন কমিশনার হুদা সাহেব,করোনা ভাইরাসের বিস্তারের মধ্যেও,উনি চট্রগ্রাম সিটিকর্পোরেশনসহ আরও কয়েকটি শুন্যঘোষিত সংসদ সদস্য নির্বাচন বন্ধ করবেন না।নির্বাচন হতেই হবে,ইভিএম মেসিনে:-🙄 লিখতে গেলে লিখা শেষ করতে পারবোনা।অবশেষে ৭টন আতসবাজির ঠেলা আমরা কি সামলাতে পারবো ? আল্লাহ স্বয়ং আমাদের বাংলাদেশের মানুষদের রক্ষা করতে হবে,না হয় কি যে হবে কল্পনার বাইরে।আপনারা আত্বিয় স্বজন যারাবাংলাদেশে আছেন তাদের সবাইকে সতর্ক করার জন্য আমার এই লেখা।দেশে আপনারা যারা আছেন এখনও বুঝতেই পারছেননা,করোনার প্রভাব কতটুকু পরতে পারে আমাদের দেশে।আপনাদের সবাইকে বলছি বাজার সদাই করে ফেলুন প্রয়োজন মতো।কারন বিপদের আগে সাবধানতা অবলম্বন করা আমাদের নবীজী (স) এর সুন্নত। যেকোন দিন সমস্ত বাংলাদেশ ব্লক ডাইন করে দিতে হতে পারে।তখন মানুষ খাবার খুঁজে পাবেনা।কি ভয়াবহ ভাবতেই গা শিউরেউঠছে।পরিস্তিতি সেদিকেই যাচ্ছে আস্হে আস্হে। মিডিয়া গুলোর প্রতি অনুরোধ এমন কিছু প্রচার থেকে বিরত থাকুন,যেগুলো প্রচার করলে মানুষের মধ্যে বেশি আতংক ছড়িয়ে পরে।যার ফলে আপনাদের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ও আস্হা উঠে যায়। আশা রাখি আপনারা যে যার মতো সবাই আগাম প্রস্তুতি নিবেন।আমার লেখাটা ঠান্ডা মাথায় পড়ে সিদ্ধান্ত নিবেন। প্রবাসি ফেরত ভাইবোনেরা দায়িত্বশীল হয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে থাকুন।নিজে বাঁচুন পরিবারকেবাঁচান দেশকে বাঁচান ।সরকারের প্রশাসনকে সহযোগিতা করুন। আপনাদের মত গুটি কয়েক প্রবাসিদের জন্য ,আমরা বাকি কয়েক মিলিয়ন প্রবাসিরা সমালোচনার পাত্র হচ্চি।আপনাদের কাছথেকে এটা কোন ভাবেই কাম্য নয়। হাইকোর্টের আদেশ ও আমাদের মহামান্য রাস্ট্রপতির আদেশ যথাযথ ভাবে পালন করা আপনাদের গুরু দায়িত্ব বটে।করোনাভাইরাসের প্রভাব বিস্তার রোধ করার জন্য কোয়ারেন্টাইনের কোন বিকল্প নাই। আমরা যদি ১৩ই মার্চ থেকে ৫এপ্রিল পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পারি তাহলে আপনারা ইতালির মতো ভয়াবহ পরিস্তিতিথেকে দেশে যেয়ে কেন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে পারবেন না।কেন দেশের কোটি কোটি মানুষকে ভয়াবহ পরিস্তিতির দিকে ঠেলেদিচ্ছেন তা আমাদের কারোরই বোধ্যগম্য নয়।দয়া করে আইন মেনে চলুন। কবে যে ঘুমাতে পারবো আল্লাহ ই ভাল জানেন। মাসুম শিকদার,বেলজিয়াম ।

করোনার ভয়াবহতা পরিমাপ করতে কয়েকটা জায়গায় বোধহয় বড়ো ভুল হয়ে গেছে।

করোনার পরিমাপ। করোনার ভয়াবহতা পরিমাপ করতে কয়েকটা জায়গায় বোধহয় বড়ো ভুল হয়ে গেছে। করোনাকে আমরা মারাত্মক মরণঘাতী এখনো ভাবছি না। কারণ হচ্ছে চীনে ছড়িয়ে পড়া করোনায় মৃত্যু হার ছিল মাত্র ৩%। মানে ১০০ জন আক্রান্ত হলে মারা গেছেন ৩ জন। এই তথ্যটা বিরাট একটা ফাঁদ। এখানেই সম্ভবত অনেক বড়ো ভুল হয়ে গেছে। ভুলটা কেউ ধরতে পারছেন কিনা বুঝতে পারছি না। চীনে মৃত্যুহার ৩% ছিল এটা সত্য। ভুলটা হচ্ছে চাইনিজদের সাথে জগতের অন্য কোনো জাতির তুলনা হয় না। বলা হয়ে থাকে দুনিয়াতে চাইনিজরাই হলো একমাত্র জাতি যারা বৃদ্ধ হয় না। একজন…

জীবন গল্প

করোনার কারনে সফর সংক্ষিপ্ত করে কাল ফিরছিলাম যশোর থেকে পাবনা হয়ে রংপুর। গাড়িতে আমার ড্রাইভার, দুই বন্ধু আর আমি, রাত তখন প্রায় ১১টা ৩০, দিনের কর্মক্লান্তীর কারনে একবার মনে হলো পাবনাতেই কোনো ভালো হোটেলে রাতটা কাটিয়ে যাই, কিন্তু করোনার ভয়ে আমার বন্ধুদয়ের আপত্তির মুখে তাও হলোনা, রাস্তায় ভয়াবহ জ্যম, বগুড়া এলাম তখন রাত সারে তিনটা, সকলে ক্লান্ত ও খুদার্ত, বগুড়া শহরে ঢুকে রুটি মাংশ খেয়ে সিদ্ধান্ত নিলাম আর জার্নি নয়, বগুড়ায় কোথাও থেকে সকালবেলা রংপুরের উদ্দেশ্যে রওনা করবো। সে কারনেই রাত ৩.৩০ মিনিটে বগুড়া পর্যটন মোটেলে যাওয়া…….. সরকারি এই প্রতিষ্ঠানটির…

করোনা ভাইরাস ও আমরা।

লেখক জাহিদুর রহমান ইমন: গত মঙ্গলবার সকাল ১০.৩০ মিনিট লোকাল শহরের নম্বর থেকে হটাৎ ফোন আসলো আমার মোবাইলে l ফোন ধরতেই বলে আর ইউ দি জারিফ ডেড ? বুজতে আর বাকি রইলোনা তার স্কুল থেকে ফোন করছে ,নিশ্চই ছেলেটার কিছু একটা হয়েছে l বললাম আমিই তার বাবা কি হয়েছে ? মহিলা টিচারটা বললো তুমার ছেলের একটু জ্বর আর সাথে মাথা ব্যথা আর খুব ভালো বোধ করছেনা !! কথাটি শুনেই আমার হার্টবিট বেড়ে গেলো !! মুহূর্তের মধ্যে দুনিয়ার সবচেয়ে বড়ো দুশ্চিন্তা করোনা ভাইরাসের দুশ্চিন্তা এসে ভর করলো !! কাঁপা গলায় মহিলাটিকে…