ফাঁকা কিশোরগঞ্জ : এক অন্যরকম বৈশাখ উদযাপন

প্রেরণা রিপোর্ট: ইতিহাস ঐতিহ্যের রাজধানী কিশোরগঞ্জ। মহুয়া-মলোয়ার দেশ, ঈশাখার দেশ, চন্দ্রাবতীর দেশ, চিত্রশিল্পী জয়নুল আবেদীনের দেশ শতবছরেও এমন বৈশাখ পালন করেনি কিশোরগঞ্জবাসী। দীর্ঘদিন যাবৎ কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন সংগঠন ও কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসন পহেলা বৈশাখের আয়োজন করে।

করোনা মহামারীর মধ্যে এবার যেন অচেনা এক বাংলা নববর্ষ। কিশোরগঞ্জে নেই সেই চিরচেনা উৎসব। মানুষের মাঝে নেই আনন্দ কিংবা উৎসবের আমেজ। কোথাও এবার আঁকা হয়নি বৈশাখের আলপনা।

করোনাভাইরাসের ফলে ঘরে বসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়া আমেজেই বৈশাখ পালন করছে বাঙালি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ঘরে থেকেই চলছে বৈশাখ উদযাপন। সব মিলিয়ে উৎকণ্ঠ আর শঙ্কার মধ্যেই কাটছে এবারের পহেলা বৈশাখ।

এবার থমকে গেছে সব। অতি ক্ষুদ্র এক জীবাণুর কাছে পুরো বিশ্ব যখন অসহায় তখন বাঙালির প্রাণের বৈশাখের আয়োজন অনেকটা মন খারাপেরই বার্তিই দেয়। তবুও ঘরে বসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়া আমেজেই বৈশাখ পালনের কথা বলছেন অনেকেই।

১৪২৭ বছরের শুরুটা এই রকম হবে এটা হয়তো বাঙালির কল্পনাতেও ছিলো না। কিন্তু এটাই এখন বাস্তবতা। তবু কালো মেঘ সরে দ্রুত আসবে রৌদ্রজ্জ্বল দিন। বৈশাখে এমনটাই প্রত্যাশা কোটি বাঙালির।

মোঃ মনির হোসেন

আরও পড়ুন

Leave a Comment